You are currently viewing ভোটার আইডি কার্ড চেক কিভাবে করবেন | Voter ID Card Check in Online

ভোটার আইডি কার্ড চেক কিভাবে করবেন | Voter ID Card Check in Online

আপনারা যারা নতুন ভোটার হয়েছেন এবং অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে চান তাদের জন্য আজকের পোস্টটি.

নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে আমাদেরকে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড বের করতে পারতেছেন না। তাই এই পোস্টটি যদি আপনি ভালো ভাবে ফলো করেন তাহলে অনেক সহজেই আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে পারবেন, এবং ডাউনলোড করে সেভ করে রাখতে ও পারবেন।

অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন কিভাবে করবেন জানতে ভিজিট করুন

ভোটার আইডি কার্ড চেক করুন অনলাইনে।

Voter id card check in online: আমরা অনলাইনে নতুন ভোটার হওয়ার জন্য একটি আবেদন ফরম পূরণ করে থাকি, এবং পরবর্তীতে এই আবেদন ফরম নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়ার পর আমাদের ফটো এবং ফিঙ্গার দিয়ে থাকে। এই সময় আমাদের কে একটি স্লিপ দেওয়া হয় যেখানে ৯ ডিজেটের একটি নাম্বার থাকে আমরা এই নাম্বারের মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ড চেক করব।

ভোটার আইডি কার্ড চেক

প্রথমে আপনার মোবাইলের বা কম্পিউটারের যেকোনো একটি ব্রাউজার ওপেন করুন এবং গুগলে সার্চ করুন. NID Card Check, সর্ব প্রথম services.nidw.gov.bd এ ওয়েবসাইট আসবে সেই ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন। তখন নিচে দেওয়া পিকচারের মত হোম পেজ আপনার সামনে আসবে।

বিঃদ্রঃ পোস্টটি পড়ে না বুঝে থাকলে একদম নিচে ভিডিও দেওয়া আছে দেখে নিবেন আশা করি বুঝতে পারবেন কিভাবে ভোটার আইডি কার্ড চেক করবেন অনলাইনে।

ভোটার আইডি কার্ড চেক

NID Card চেক সার্চ করার পর ওয়েবসাইটের হোম পেইজে উপরের পিকচারের মত পেইজ ওপেন হবে এখানে ২ টি অপশন রয়েছে একটি হল ফর্ম নাম্বার এবং আরেকটি হল এন আইডি কার্ড নম্বরের মাধ্যমে, যেহেতু আমরা ভোটার আইডি কার্ড পায়নি তাই আমাদের কাছে এন আইডি কার্ডের নাম্বার নেই আমরা স্লিপ নাম্বার দিয়ে চেক করব।

পাসপোর্ট চেক কিভাবে করবেন অনলাইনে

ভোটার আইডি কার্ড চেক করার প্রথম ধাপ।

আপনারা ফরম নাম্বারের নয় ডিজিটের স্লিপ নাম্বার প্রথম লাইনে বসাবেন, তার পর আপনার জন্ম তারিখ সঠিক ভাবে বসাবেন, এবং একটি কেপচার দেওয়া রয়েছে এটি দিয়ে ভোটার তথ্য দেখুনে ক্লিক করুন।

ভোটার আইডি কার্ড চেক

উপরের পিকচারের যেভাবে সব তথ্য দেখতেছেন এভাবে আপনার ভোটার আইডি কার সকল তথ্য দেখতে পাবেন।

এবং এখানে আপনি আপনার এন আইডি কার্ডের নাম্বার দেখতে পাবেন এবং এটি সেইভ করে রাখেন পরবর্তীতে নাম্বার লাগবে।

জাতীয় পরিচয়পত্র চেক এর দ্বীতিয় ধাপ

ফরম স্লিপ নাম্বার দিয়ে চেক করার আপনার এন আইডি কার্ডের নাম্বার পাবেন তার পরের ধাপে আপনি ওয়েবসাইটের উপরে লগ ইন এবং রেজিস্ট্রার লেখা রয়েছে যেকোনো একটিতে ক্লিক করবেন।

ভোটার আইডি কার্ড চেক

Voter ID Card check এর তৃতীয় ধাপ:

রেজিস্ট্রার বটমে ক্লিক করার পর আপনি নিচে দেওয়া পিকচারের মত ওয়েব পেইজ ওপেন হবে সেখানে ক্লিক করুন।

NID Card Check এর চতুর্থ ধাপ:

এই ধাপে আপনার এন আইডি কার্ডের নাম্বার দিবেন এবং জন্ম তারিখ সঠিক ভাবে বসাবেন তার নতুন কেপচারটি পরুন করে পরবর্তী ধাপে জানবেন।

পঞ্চম ধাপ: ভোটার আইডি কার্ড চেক

নাম্বার জন্ম তারিখ দেওয়ার পর এখন আপনার অ্যাকাউন্ট ইনফরমেশন দিবেন আপনার ভোটার এলাকার নাম জেলার নাম বিভাগের নাম সব কিছু ভোটার আইডি কার্ডে যেভাবে দেওয়া রয়েছে ঠিক সেভাবেই দিবেন ভুল হলে আপনার রেজিস্ট্রেশন হবে না তাই সঠিক ভাবে বসাবেন।

এই ধাপে আপনার মোবাইল নাম্বার ভিরিফাই করতে হবে আপনি ভোটার ফরম দেওয়ার সময় যে মোবাইল নাম্বার দিয়েছেন এই পেইজটিতে নাম্বারটি সো হবে আপনি চাইলে চেইন্জ অপশনে ক্লিক করে চেঞ্জ ও করতে পারবেন। কোডের জন্য ক্লিক করবেন আপনার ফোনে একটি কোড আসবে এই কোডটি এখানে বসাবেন এবং পরবর্তী ধাপের জন্য ক্লিক করবেন।

নাম্বার ভিরিফাই শেষ হওয়ার আপনার সামনে আপনার ‌‌‌প্রফাইল পিকচার সো হবে এবং এখানে একটি পাসওয়ার্ড সেটাপ করতে বলবে চাইলে আপনি পাসওয়ার্ড করতে ও পারেন আবার চাইলে না দিয়ে আপনি সামনের ধাপে যেতে পারবেন, পাসওয়ার্ড সেটাপ করলে লাভ এটিই যে আপনি পরবর্তিতে যদি আপনি আবার আপনার ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে চান বা ডাউনলোড করতে চান তাহলে অনেক সহজেই করতে পারবেন এটি।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন চেক করুন।

ভোটার আইডি কার্ড

কিভাবে ডাউনলোড করবেন ভোটার আইডি কার্ড?

পরবর্তী স্টেপে আপনি যদি পাসওয়ার্ড সেটাপ করেন তাহলেত ভোটার আইডি কার্ডের নাম্বার এবং আপনার দেওয়া পাসওয়ার্ড দিয়ে পরের ধাপে যাবেন। আর যদি চান তাহলে এড়িয়ে যেতে ও পারেন, এই পেইজটিতে আপনার ভোটার আইডি কার্ডের সকল তথ্য দেওয়া পাবেন এবং সাইটে আপনার আইডি কার্ডের ডাউনলোড অপশন ও দেখতে পাবেন, ডাউনলোডে ক্লিক করলে আপনার আইডি কার্ড ডাউনলোড হয়ে যাবে।

Voter ID Card Check

ডাউনলোড কমপ্লিট হওয়ার পর আপনি নিচের পিকচারের মত আপনার আইডি কার্ড দেখতে পাবেন।ভোটার

এখন‌ আপনি এই কার্ডের মাধ্যমে আপনার সকল কাজ করতে পারবেন। চাইলে আপনি প্রিন্ট করে আপনার যে সব কাজে প্রয়োজন আপনি ব্যবহার করতে পারবেন।

কোন কিছু না বুঝে থাকলে কমেন্ট করবেন আপনাকে বুঝিয়ে দেওয়া হবে এবং সবাই ভালো থাকবেন এবং পোস্টটি শেয়ার করবেন।

ভোটার আইডি কার্ড পেতে কতদিন লাগে?

আপনার ভোটার আইডি কার্ড পেতে কতদিন লাগবে? সাধারণত ভোটার নিবন্ধন এর ২০/২৫ দিনপর আপনি আপনার মোবাইলে যদি উপরের দেওয়া দেওয়া ধারাবাহিক ধাপ গুলো অনুসরণ করে ভোটার আইডি কার্ড চেক করেন তাহলে এনআইডির কপি দেখতে পারবেন আপনি চাইলে অনলাইন কপি ডাউনলোড করে আপনার সকল কাজ করতে পারবেন। , তারপর তারাই আপনাকে আপনার থানার নির্বাচন কমিশনে পাঠিয়ে দিবে। আর হার্ডকপি আসতে একটু সময় লাগবে। তবে যখন আসবে তখন আপনার মোবাইল ম্যাসেজে জানিয়ে দিবে। আপনি আপনার নির্বাচন কমিশনে গিয়ে খুজ করলে পেয়ে যাবেন।

ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন সংক্রান্ত প্রশ্ন এবং উত্তর।

কিভাবে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করবেন তা নিয়ে বিস্তারিত একটি আর্টিকেল আমাদের ব্লগে রয়েছে প্রয়োজন হলে দেখতে পারেন। তাহলে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন নিয়ে প্রশ্ন ও উত্তর দেখে নিন।

প্রশ্নঃ ভোটার আইডি কার্ড কতবার সংশােধন
করা যায়?
উত্তরঃ একটি ভোটার কার্ড বার বার সংশােধন করা
যাবেনা একটি কার্ড মাত্র এক বার আপনি সংশােধন
করতে পারবেন। তবে আপনার সংশোধনের কারণ যুক্তিযুক্ত না হলে কোন রকম
সংশােধন হবে না।

প্রশ্নঃ আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রে জন্ম তারিখ ভুল হয়ছে আপনার কাছে কোন দলিল নেই, কিভাবে সংশােধন করবেন?
উত্তরঃ আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রে জন্ম তারিখ ঠিক না থাকলে আর যদি আপনার কাছে কোন দলিল না থাকে তাহলে এটা সংশােধন করার জন্য আপনার নিকটস্থ থানা বা জেলা নির্বাচন কমিশনের অফিসে আপনাকে আবেদন করতে হবে। তাঁরা আপনাকে সবকিছু বুঝিয়ে দিবে।

প্রশ্নঃ স্বাক্ষর পরিবর্তন কিভাবে করতে পারি?
উত্তরঃ আপনার যদি ভোটার আইডি কার্ডের স্বাক্ষর পরিবর্তন করতে চান তাহলে অবশ্যই করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনাকে নতুন সাক্ষর এর নমুনা এবং গ্রহণযোগ্য কারণ সহ আবেদন করতে হবে। আর মাত্র একবারই পরিবর্তন করতে পারবেন আপনার ভোটার আইডি কার্ডের সাক্ষর।

প্রশ্নঃ ভোটার আইডি কার্ডের বয়স বা জন্ম তারিখ পরিবর্তন করার উপায় কি?

উত্তরঃ জন্ম তারিখ বা বয়স পরিবর্তনের জন্য আপনি এখন যে তারিখ দিতে চাচ্ছেন সে তারিখ আপনার SSC এবং HSC সার্টিফিকেট অনুযায়ী হলে আপনি আবেদন করতে পারবেন এ ক্ষেত্রে আপনার সকল সার্টিফিকেট এবং জন্ম নিবন্ধন সহ আবেদন করার সময় সাবমিট করতে হবে।

ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করার নিয়ম।

আপনার ভোটার আইডি কার্ডে যদি কোন সমস্যা থাকে যেমন ভোটার আইডি কার্ডের নামে ভুল অথবা জন্ম তারিখ ভুল রয়েছে অথবা অন্য কোন সমস্যা থাকে তাহলে অবশ্যই আপনি ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে পারবেন এর জন্য কি কি করতে হবে বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন।

কিভাবে ভোটার আইডি কার্ড চেক করবেন ভিডিও।

আমাদের এই পোস্টটি আপনাদের হেল্পফুল হলে প্লিজ আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিয়ে সাপোর্ট করবেন।Facebook Page here.

চাকরির খবর পেতে ভিজিট করুন

This Post Has 2 Comments

  1. Mohammad rifat

    এক মাস পনের দিন হয়ে গেলো মায়ের নাম সংশোধন করার জন্য । কিন্তু কোনো রকমের বার্তা আসে নি ।

    1. scholarsme

      ভাই লগ ইন করে ভোটার আইডি কার্ডের স্ট্যাটাস চেক করে দেখেছেন কি?

Leave a Reply