প্রাথমিক শিক্ষক বদলি নীতিমালা ২০২২ ( ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে আবেদন শুরু)

You are currently viewing প্রাথমিক শিক্ষক বদলি নীতিমালা ২০২২ ( ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে আবেদন শুরু)
প্রাথমিক শিক্ষক বদলি নীতিমালা

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম: প্রাথমিক শিক্ষক বদলি নীতিমালা সম্পর্কে আজকের পোস্টটি, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক বদলির আবেদন শুরু হতে পারে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে।এবার এ বদলি কার্যক্রম হবে অনলাইনে অর্থাৎ আপনি আবেদন অনলাইনে করতে পারবেন।

বুধবার ৭ ই সেপ্টেম্বর দুপুর এ আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো জাকির হোসেন এ তথ্য জানান।

সচিবালয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় । মন্ত্রণালয় এর সচিব আমিনুল ইসলাম এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

পূর্বে সারাদেশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক বদলি কার্যক্রম পরিচালনা অনলাইনে হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন সরকার ।

শিক্ষক বদলি কার্যক্রম এর পাইলটিং কাজ শেষ হয়েছে সফটওয়্যার এ । আগস্ট থেকে শিক্ষক বদলি কার্যক্রম শুরু হওয়ার কথা ছিল একমাস পিছিয়ে তা সেপ্টেম্বর এ শুরু হতে যাচ্ছে।

প্রাথমিক শিক্ষক বদলি নীতিমালায় , পাঁচ কারণে বদলি করা যাবে প্রাথমিক এর শিক্ষক:

প্রাথমিক শিক্ষক বদলি কার্যক্রম শুরু হতে যাচ্ছে তবে শুধু শুধু বদলি হলে হবে না , প্রাথমিক শিক্ষক বদলি কার্যক্রম এর নীতিমালা অনুযায়ী বদলি কার্যক্রম শুরু হবে , আমি আপনাদের সাথে বদলি নীতিমালা গুলো শেয়ার করলাম !

প্রাথমিক শিক্ষক বদলি নীতিমালা
প্রাথমিক শিক্ষক বদলি নীতিমালা

যে সকল বিদ্যালয়ে ৪ জন বা তার কম সংখ্যক শিক্ষক কর্মরত আছেন বা শিক্ষক ছাত্র অনুপাত ১: ৪০ এর বেশি রয়েছে ,সে সকল বিদ্যালয়ে থেকে শিক্ষক প্রতিস্থাপন না করা পর্যন্ত সাধারনভাবে শিক্ষক বদলি করা যাবে না।।এটি হচ্ছে আমাদের বদলি নীতিমালার প্রথম শর্ত ।

আমাদের অনেক সম্মানিত শিক্ষক আছেন যে এক বদলির পর আবার বদলি হতে যাচ্ছেন তবে এখন আর এইভাবে হবে না নিয়ম অনুযায়ী বদলি কার্যক্রম শুরু হবে

  • এক বদলির পর ,৩ বছর না হলে দ্বিতীয় বদলি নয় ,

অর্থাৎ আমাদের সম্মানিত শিক্ষক এর তিন বছর না হলে তিনি বদলি হতে পারবেন না আবেদন যদিও তিনি করেন তা বাতিল হবে।

  • প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতির পর ২ বছর পর বদলি হওয়া যাবে।

অর্থাৎ আমাদের সম্মানিত প্রধান শিক্ষক গন যদি পদন্নোতি পান তবে তার ২ বছর পর বদলির জন্য আবেদন করতে পারবেন অন্যতায় আবেদন করলেও পারবেন তবে তা বাতিল হবে

  • চার জনের কম শিক্ষক থাকলে বদলি নয় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ৩০/১০/২০১৮ খ্রি: ৩৮.০০৮.০২২.০০.০০২.২০১১.৮৫১ নম্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বদলি নির্দেশিকা মোতাবেক বদলি করা যাবে।
  • বদলির সময়কালটা হচ্ছে এইভাবে অর্থাৎ,
  • সাধারণ ভাবে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের প্রতি শিক্ষা বছরের জানুয়ারি ও মার্চ মাসের মধ্যে একই উপজেলা / থানা,আন্ত: উপজেলা / থানা , আন্তঃজেলা ,আন্ত: সিটি কর্পোরেশন ও আন্ত বিভাগ বদলি করা যাবে।

তবে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বদলি কর্তৃপক্ষ যারা আছেন তো উনার ই কিন্তু এসব কার্যক্রম পরিচালনা করবেন। অর্থাৎ

  • জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার তার নিজ অধিক্ষেত্রে একই উপজেলার মধ্যে সংশ্লিষ্ট উপজেলা ,/ থানা শিক্ষা অফিসার এর সুপারিশ ক্রমে সহকারী শিক্ষকদের আন্ত: বিদ্যালয় বদলির অনুমোদন প্রদান করতে পারবেন । জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের অনুমোদন গ্ৰহন পূর্বক উপজেলা / থানা শিক্ষা অফিস।

প্রাইমারি শিক্ষকদের বেতন স্কেল ২০২২ | প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন কত?

বদলির শর্তাবলীর মধ্যে সাধারণ শর্তাবলী গুলো হলো:

  • শিক্ষক বদলির ক্ষেত্রে সিটি কর্পোরেশন ও উপজেলাকে একক ইউনিক হিসেবে বিবেচনা করতে হবে।
  • সহকারী শিক্ষক পদে চাকরির মেয়াদ নূন্যতম ২বছর পূর্ণ হলে এবং পদ গুলো শুন্য থাকলে আন্ত:- উপজেলা / থানা / আন্ত: সিটি কর্পোরেশন এ বদলি করা যেতে পারে।

বৈবাহিক কারনে বদলি:

  • চাকরি লাভের পর বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন এমন শিক্ষক স্বামী/ স্ত্রীর ঠিকানায় বদলি হতে ইচ্ছুক হলে তাদের আবেদন এর প্রেক্ষিতে শূন্য পদের বিপরীতে বদলি করা যেতে পারে।

প্রশাসনিক কারনে বদলি:

  • আবার প্রশাসনিক প্রয়োজনে যে কোন সময় যেকোন শিক্ষককে বদলি করা যেতে পারে।

সমন্বয় বদলি:

  • জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার তাঁর নিজ অধিক্ষেত্রে ৩১ ডিসেম্বর এর মধ্যে একই উপজেলার বিদ্যালয় সমূহের মধ্যে শ্রেনিকক্ষ / শিক্ষক ছাত্র সংখ্যার অনুপাত শিক্ষক দের সুষম বন্টন নিশ্চিত করার প্রয়োজনে শিক্ষা অফিসার এর সাথে আলোচনা পর্যালোচনা ও সুপারিশ এর আলোকে বিদ্যালয় ভিত্তিক শিক্ষক সমন্বয় ও বিদ্যালয় ওয়ারি শ্রেনী কক্ষ ও শিক্ষক সংখ্যা নির্ধারণ করে তা উল্লেখ পূর্বক আদেশ জারি করা যাবে।

সংযুক্তিতে বদলি:

  • । ডিপি ইন এড/ সি ইন এড প্রশিক্ষণে এক বা একাধিক শিক্ষকদের যোগদান এর কারনে কিংবা কোন শিক্ষক এর সাময়িক বরখাস্ত জনিত শুন্য পদে বা মার্তৃকালীন ছুটির কারণে শিক্ষক স্বল্পতা হেলা কোনো বিদ্যালয়ের পাঠদান বিঘ্নিত হওয়ার কারণে সংযুক্তিতে বদলি করা যাবে।
  • বিবিধ কারন:
  • কোনো শিক্ষক চাকুরীরত অবস্থায় জীবনঘাতি ব্যাধিতে আক্রান্ত হলে উক্ত শিক্ষককে চিকিৎসার স্বার্থে বদলি করা যাবে।

এইছিল প্রাথমিক শিক্ষক বদলির নীতিমালার শর্তবালি বা বিষয় গুলো ।শিক্ষকরাই জাতি গড়ার কারিগর তাই তাদের সুবিধা আমাদের চিন্তা করা প্রয়োজন উনাদের জীবন চলার পথ সহজ হোক এটাই কামনা করছি ।

প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষকদের পেনশন হিসাব ২০২২

Leave a Reply