বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২২ | How To Open Bkash Account

You are currently viewing বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২২ | How To Open Bkash Account

বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম: বিকাশ একটি জনপ্রিয় প্লাটফর্ম। অর্থ আদান-প্রদানে বিকাশের জুড়ি নেই। বর্তমানে বিকাশের নাম শুনেন নাই, এমন কেউ খুঁজে পাওয়া মশকিল। একেবারে আজোপাড়া গায়ে বিকাশ পৌঁছে দিয়েছে তার সেবা। সে সেবা পেতে হলো বিকাশ একাউন্ট প্রয়োজন। আজ আমরা বিকাশ একাউন্ট কিভাবে খোলা হয় তা নিয়ে আলোচনা করব। বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম, হ্যা সেটাই। how to open bkash account।

বিকাশ কি?

যারা বিকাশের নাম নতুন শুনেছেন। অথবা নিউ জেনারেশনর নতুন প্রজম্ম। তারা হয়ত জানেন না, হয়ত উপলব্ধি করতে পারছেন না সময় এরকম ছিল না। একটা সময় ছিল – টাকা আদান-প্রদান মানুষের কি বেগ পোহাত। লেনদেনর ক্ষেত্রে কি যে কষ্ট করতে হত!!! এক শহর থেকে অন্য শহরে টাকা পৌঁছাতে মানুষের প্রচুর সময় ত নষ্ট হত। সাথে সাথে টাকাও। কেননা অল্প টাকা অন্যকে দিত হবে, তাই তারচেয়ে বেশি টাকা খরচ করে টাকা বহন করে কাঙ্ক্ষিত জায়গায় টাকা পৌঁছাতে হত।

কেউ প্রবাসে থাকলে, বাসায় টাকা পাঠালে সে টাকা পৌছাতে মাস বা বছর খানিক সময় লেগে যেত। কিন্তু এখন বিষয়টি সহজ হয়ে গেছে। লেনদেনের মাধ্যম খুব সহজ। নিমিষেই টাকা বিশ্বের এ প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে পৌছানো যায়। এর পিছনে বিকাশ অনন্য ভূমিকা পালন করছে। বিকাশ একটি লেনদেন ও পেমেন্ট মাধ্যম।

বিকাশ

বিকাশ একটি এপ্লিকেশন বা একটি মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবস্থা। যার মাধ্যমে যেকোনো সময় অর্থ লেনদেন ও আরো নানা ধরনের সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন বিকাশ গ্রাহকগণ। কিভাবে বিকাশ একাউন্ট খোলা হয়? হ্যা, আজ আমরা বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম নিয়ে আলোচনা করব।

বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম।

বিকাশ লেনদেনের ক্ষেত্রে সবার সেরা। গ্রাহক সেবার দিক থেকে বিকাশ এগিয়ে রয়েছে সবার আগে। শুধু লেনদেন নয়, আরো বিভিন্ন ধরণের সেবা গ্রাহকদের প্রদান করেছে বিকাশ। কাজেই বিকাশ গ্রাহকদের কাছে এক আস্হার নাম।কিন্তু আফসোসের বিষয় আমরা জানিনা কিভাবে বিকাশ একাউন্ট খুলতে হয়।

বিকাশ একাউন্ট খেলার পদ্ধতি

বিকাশ একাউন্ট সাধারণ কয়েক রকম খোলা যায়

  • ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন পয়েন্টের মাধ্যমে  খোলা।৷
  • এজেন্ট পয়েন্টে কেওয়াইসি ফর্ম পূরণ করে বিকাশ একাউন্ট খোলা।
  • এপ্লিকেশনের মাধ্যমে।
  • এজেন্টের মাধ্যমে।
  • গ্রাহক সেবা কেন্দ্রে বিকাশ একাউন্ট খোলা।

এপ্লিকেশনের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট।

আপনি ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট ওপেন করতে পারেন। সেটা কেবল এপ্লিকেশনের মাধ্যমে সম্ভব। এখন আমরা দেখাবে কিভাবে ঘরে বসে নিজে নিজে অ্যাপের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট খুলতে হয়।

এপ্লিকেশনের মাধ্যমে একাউন্ট খুলতে যা প্রয়োজন।

প্রথমে আপনাকে আপনার এন্ড্রয়েড মোবাইল ফোন থাকতে হবে। থাকলে গুগল প্লে সফটওয়্যার থেকে  বিকাশ এপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করে নিতে হবে। তারপর এপ্লিকেশন ওপেন জরে রেজিস্টার অপশনে যাবেন।

রেজিষ্টার অফশনে প্রথমে আপনি যে মোবাইল নম্বরে বিকাশ একাউন্ট খুলতে চান যেখানে দিতে হবে।

তারপর আপনার অপারেটর অপশন বেছে নিবেন। বেছে নেবার পর ল্যাংগুয়েজ অপশন ক্লিক করতে হবে।
তারপর আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের দুপাশের ছবি তুলতে হবে।

বিকাশ আপনার কাছে কিছু চাইবে,আপনি তথ্য দিতে হবে। যেমন; লিঙ্গ, পেশা, আয়ের উৎস।

আপনার একটি ছবি তুলতে হবে।

এরপর বিকাশ থেকে একটি কনফার্মেশন এসএমএস আসলেই আপনার একাউন্ট হয়ে যাবে।

তারপর বিকাশের ৫ ডিজিটের একটি পিন নম্বর সেট করে নিলেই আপনার একাউন্ট খোলা হয়ে যাবে।

এজেন্টের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট ওপেনঃ

এজেন্টের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট খুলতে চাইলে, আপনাকে আপনার আশেপাশের বিকাশ এজেন্টের কাছে যেতে হবে।

  • প্রথমে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র নিতে হবে।
  • দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি নিতে হবে।
  • আপনার যে নম্বরে একাউন্ট খুলবেন তা এজেন্ট চাইবে, তা আপনি দিবেন।
  • এজেন্ট সব তথ্য পূরণ করবে।
  • আপনার মোবাইলে একটি নিশ্চিতকরণ  এসএমএস আসবে। আপনাকে একটি পিন নম্বর সেট করতে হবে।
  • হয়ে গেল আপনার বিকাশ একাউন্ট।

ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন পয়েন্টের মাধ্যমে একাউন্ট খোলা

আপনি যদি বিকাশ একাউন্ট খুলতে চান, তাহলে ডিজিটাল রেজিস্ট্রশন পয়েন্টে গিয়েও নতুন একাউন্ট খুলতে পারবেন। তার জন্য আপনাকে যা যা করতে, আমরা নিচে তা তুলে ধরেছি।

শর্ত বা প্রয়োজনীয়।

  •  বিকাশের একাউন্ট খোলার জন্য এটা মোবাইল  আবশ্যক।
  • জাতীয় পরিচয়পত্রের মূল কপি।
  • জাতীয় পরিচয় পত্র ছাড়া বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন না

নিয়নাবলি

  •  এজেন্ট মোবাইল নাম্বার নিশ্চিত করে একাউন্ট খোলার জন্য অনুমতি নিবেন।
  • এজেন্ট আপনার নাম্বারে পাঠানো রেফারেন্স কোড নিবেন।
  • জাতীয় পরিচয়পত্রের উভয় দিকের ছবি তুলবেন।
  • আপনার একটি ছবি তুলবেন।
  • তারপরন আপনি একটি কনফার্মেশন এসএমএস পাবেন।
  • মানে আপনার বিকাশ একাউন্ট ওপেন হয়ে গেছে।

বিকাশ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম

এজেন্ট পয়েন্টে কেওয়াইসি ফর্ম পূরণ করে বিকাশ একাউন্ট খোলা।এজেন্ট পয়েন্টে গিয়ে একাউন্ড খুলতে যা যা করতে হবে।

  • মোবাইল ফোন। যে ফোন দিয়ে একাউন্ট খুলবেন। সেটি সাথে নিয়ে আসবেন।
  •  NID Card (মূল এবং ফটোকপি)
  •  পাসপোর্ট সাইজের ছবি লাগবে (1 কপি)।

বিকাশ ব্যালেন্স চেক।

বিকাশ ব্যালেন্স করা দরকার পরে। ব্যালেন্স টেক করার জন্য আপনাকে একটি কোড নাম্বর মনে রাখতে হবে। বিকাশ ব্যালেন্স চেকের কোড নাম্বর হলো *২৪৭#।

  • আপানার মোবাইল দিয়ে *247# ক্লিক করতে হবে।
  • ৮ নম্বর অপশনে  বিকাশে গিয়ে “চেক ব্যালান্সে” ক্লিক করুন
  • আপনার একাউন্টে টাকা দেখতে পাবেন।

এপ্লিকেশন দিয়ে ব্যালেন্স চেক।

আর এপ্লিকেশন দিয়ে ব্যালেন্স চেক একেবারে সহজ। এপ্লিকেশনে পিন নম্বর দিয়ে প্রবেশ করলেই উপরের দিকে আপনার টাকা দেখাবে।

এজেন্ট একাউন্ট ওপেনের নিয়ম।

বিকাশ এজেন্ট একাউন্ট খোলতে চান অনেকে।বিশেষ করে নতুন উদ্যোক্তারা বা মুদি দোকান দাররা। আমরা দেখাব কিভাবে এজেন্ট একাউন্ট খোলতে হয়।

যা লাগবে।

  • জাতীয় পরিচয়পত্র।
  • পাসপোর্ট সাইজের ছবি (২ কপি)।
  • এক্টিভ মোবাইল নাম্বার।
  • ব্যাবসায়ীর ক্ষেত্রে ব্যাবসার লাইসেন্স।
  • ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নাম।
  • সকল তথ্যাদি পূরণ করে এজেন্ট বরাবর জমা দিতে হবে।
  • নিশ্চিতকরণের পর এসএমএস আসবে।
  • পিন নাম্বার দিয়ে আপনার একাউন্ট সেট করে নিতে হবে।

বিকাশ নাম্বার চেঞ্জ বা পরিবর্তন।

অনেকে কোন কারণ বশত বিকাশ একাউন্ট চেঞ্জ করতে চান। চিন্তার কারণ নেই বিকাশ সে অপশনও রেখেছে।  আমরা আপনাকে দেখাবে কিভাবে একাউন্ড চেঞ্জ করতে হয়।

এটা একেবারে সহজ। Hepline কল দিবেন। তাদের তথ্য অনু্যায়ী পিন ও নাম্বর পরিবর্তন করলেই হয়ে যাবে নাম্বার পরিবর্তন।

বিকাশ হেল্পলাইন Helpline

বিকাশের হেল্পলাইনে আপনার যে কোনো প্রয়োজনে যোগাযোগ করতে পারেন।

  • ১৬২৪৭
  • অথবা ০২-৫৫৬৬৩০০১
  • যেকোনো নম্বর থেকে কল করতে পারবেন।

বিকাশ ইমেইল

বিকাশ অফিসে ই-মেইলের মাধ্যমেও কন্টাক্ট করতে পারবেন।

বিকাশ অফিসিয়াল ওয়েবসাইট লিংক

[email protected]

বিকাশ ব্যালেন্স চেক কোড

*247# হলো বিকাশ ডয়াল কোড। আপনি এখানে ব্যালেন্স চেঞ্জসহ ক্যাশ আউট ও অন্যান্য আরো অনেক কিছু করতেনপারবেন।

বিকাশ একাউন্ড লক বা বন্ধ হলে করণীয়।

বিকাশ একাউন্টে ৩০ মিনিট এর ভিতরে ৩ বার ভুল পিন করলে বিকাশ একাউন্ট সাময়িকভাবে লক হয়ে যায়।

এভাবে যদি একাউন্ট লক বা বন্ধ হয়ে যায় তাহলে বিকাশ হেল্পলাইনে করলেই সমাধান করতে পারবেন।

প্রিয় নাম্বারে সেন্ড মানি

বিকাশের প্রিয় এজেন্ট হিসাবে কিছু নম্বর সেট করা যায়। এক্ষেত্রে আপনি বিশেষ সুলভ মূল্যের চার্জ পাবেন;

  • প্রতি মাসে ২৫,০০০ টাকা পর্যন্ত প্রিয় নাম্বারগুলোতে সেন্ড মানি করতে পারবেন। কোনো ধরণের চার্জ ছাড়া।
  • প্রতি মাসে ২৫,০০০১-৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত প্রিয় নাম্বারে লেনদেন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে ৫ টাকা চার্জ প্রযোজ্য হবে।
  • প্রিয় নাম্বারে ৫০,০০০ টাকার বেশী হলে, ১০ টাকা চার্জ দিতে হবে।

ক্যাশআউট নিয়ম ও চার্জ।

বিকাশের নতুন নিয়মানুযায়ী ক্যাশআউটের ক্ষেত্রে আ্যাপস ও কোড নম্বারের মাধ্যমে একই চার্জ। উভয় ক্ষেত্রে ১.৮৫%। তবে প্রিয় এজেন্টের বেলায় উভয় ক্ষেত্রে ১.৭৫% চার্জ।

বিকাশ একাউন্ট খুললেই ১০০ টাকা বোনাস।

বিকাশ একাউন্ট খুললেই পেয়ে যাবেন ১০০ টাকা বোনাস।  তবে একাউন্ট খুলতে হবে বিকাশ অফিশিয়াল অ্যাপ দিয়ে।  গুগুল প্লে থেকে অ্যাপলিকেশনটি ডাউনলোড করতে হবে। নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে একাউন্ট খুললেই ১০০ টাকা পেয়ে যাবেন। পূর্বে যদি একবার বোনাস নিয়ে নেন তাহলে আর পাবেন না। বোনাস একবারই দেওয়া হয়।

Leave a Reply