বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্ট অবসর ভাতা অনলাইন আবেদন কিভাবে করবেন

You are currently viewing বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্ট অবসর ভাতা অনলাইন আবেদন কিভাবে করবেন

আজ আপনাদের সামনে বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্ট অবসর ভাতা অনলাইন আবেদন কিভাবে করবেন তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে সম্পূর্ণ পড়লে আশা করি নিজে নিজে অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন।

শিক্ষক ও কর্মচারীদের অবসর শেষে সরকার একটি কল্যান ট্রাস্ট দিয়ে থাকে। আবার বলা যায় নিয়মিত কাজের বা চাকরীর পাশাপাশি অবসর সুবিধার আবেদন করে আপনার আয় বাড়িয়ে নিতে এই কল্যান ট্রাস্ট এর গুরুত্ব অপরিসীম।

শ্রদ্ধেয় শিক্ষকগন কল্যান ট্রাস্টে যে আবেদন আপনি কিভাবে তা করবেন তার ছোট্ট একটি হিসাব আমি ব্যাখা করলাম।
প্রথমে কল্যান ট্রাস্টের সেবা সমূহ এ যাবেন (non gov teacher welfare trust) । তারপর অনলাইন আবেদন সমূহ এ ক্লীক করবেন তারা তোমাকে পরবর্তী ধাপে পৌঁছাবে। তারপর

১, ইনডেক্স নম্বর
২, শিক্ষক / কর্মচারীর নাম
৩, মোবাইল নাম্বার।
৪, জাতীয় পরিচয়পত্র দিতে হবে

বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী অবসর ভাতা অনলাইন আবেদন

অবসর ভাতার অনলাইন আবেদন করার জন্য মৌলিক তথ্য সমূহ

মৌলিক তথ্য সমূহের মধ্যে কি কি লাগবে তা নিচে দেওয়া হল:
আপনার নাম:
পিতার নাম:
মাতার নাম:
জন্ম তারিখ:
এমপিওভুক্তির তারিখ:
অবসর পদত্যাগ এর তারিখ:
বর্তমান ঠিকানা:
আবেদন কারীর ছবি:
জাতীয় পরিচয়পত্র দিতে হবে।

তারপর ফরম এ থাকা সেবা তথ্য এর সবগুলো কলাম পূরন করতে হবে।
সর্বশেষ উত্তোলিত আপনার যে মূল বেতন এবং স্থায়ী অবসর কালীন যে প্রাপ্য বেতন তার উল্লেখ করবেন।

আবেদন কারীর কার্যকাল অর্থাৎ আপনার চাকরির সময়কাল ৩১ বছর থাকলে তা উল্লেখ করবেন।তা উল্লেখ করার পর প্রতিষ্ঠান এর নাম আসবে তা দেবেন।
অব্যহতি কাল উল্লেখ করতে হবে।
চাকরির যোগদানের তারিখ উল্লেখ করবেন।

জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করার নিয়ম: GPF Balance Check Online

বেসরকারি শিক্ষক ভাতার জন্য ব্যাংক বিবরণী যা লাগবে

আপনার ব্যাংকের যে একাউন্ট বিবরণী আছে তা দিতে হবে
ব্যাংক এর শাখার নাম উল্লেখ করতে হবে।

  • আপনার ডকুম্যান্ট অর্থাৎ হিসাবের ধরন কি অনলাইন কৃত তা উল্লেখ করতে হবে।
  • শিক্ষক এর নাম।
  • শিক্ষক এর ছবি।
  • ব্যাংক বিবরণী ছয় মাসের
  • ব্যাংক প্রত্যয়নপত্র। অনলাইনে ডাউনলোড করা একটি পত্র তা দিতে হবে।

কি কি ফরম পূরণ করতে হবে তা উল্লেখ করা হলো:

১, এমপিওর কপি দিতে হবে।
২, আপলোড করা এমপি ওর কপি দিতে হবে।
৩, গত ছয় মাসের ব্যাংক স্ট্যাটম্যান্ট দিতে হবে।
৪, Last ছয় মাসের ব্যাংক স্ট্যাটম্যান্ট দিতে হবে।
৫, ব্যাংকের একটি প্রত্যয়ন দিতে হবে।

আবার প্রধান শিক্ষকের ছবি লাগবে এবং স্কুলের প্রত্যয়ন লাগবে।
আপনি যে কল্যান ট্রাস্টের জন্য যে আবেদন করছেন তার কপি অর্থাৎ আপনার সাইন করা আবেদন কপি টা লাগবে।
তারপর কল্যান ট্রাস্টের সচিব বরাবর স্কুলের সভাপতি একটি পত্র দিবেন তা উল্লেখ করতে হবে।

সবশেষে একথা বলতে চাই উপরোক্ত বিষয়গুলো কল্যান ট্রাস্টের আবেদন এর একটি রুপরেখা মাত্র। ভূল ত্রুটি থাকতে পারে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন।

Leave a Reply