You are currently viewing নেইমারের জীবনী | Neymar Jr Biography

নেইমারের জীবনী | Neymar Jr Biography

নেইমারের জীবনী। নেইমার জুনিয়র Neymar jr এক বিস্ময়। নেইমার জুনিয়ার Neymar ব্রাজিলের ফুটবল বরপুত্র। তাকে রাজপুত্র নামে অভিহিত করাহয়, হ্যা ব্রাজিল ফুটবলের রাজপুত্র। যিনি তার শৈল্পিক খেলার মাধ্যমে বিশ্বের কাছে পরিচিত নাম। তিনি একজন আক্রমণ ভাগের খেলোয়াড়। তিনি জাতীয় দল ও ফরাসী ক্লাব প্যারিস সাইন্টে ফরোয়ার্ড বা উইঙ্গার হিসেবে খেলেন। তিনি খেলোয়াড় শৈলী ও দৃঢ় মানসিকতার জন্য তার দলের প্রতিপক্ষ ও তাকে ভালোবাসে তার খেলার প্রশংসা করতে পিছপা হন না।

নেইমারের নেতৃত্বে সর্বপ্রথম ব্রাজিল অলিম্পিক গেমসে চ্যাম্পিয়ন হয়। নেইমারের নেতৃত্বে ২০২১ সালে কোপা আমেরিকার রানার্সআপ হয়। ব্রাজিল সেই টুর্নামেন্টে যাবার পিছনেনসবচেয়ে বেশি আবদান ছিল নেইমারের  Neymar.

আরোও পড়ুন:

নেইমারের জীবনী ও ক্যারিয়ার

নেইমার
নেইমারের ক্যারিয়ার

আজ আমরা বিশ্বের অন্যতম সেরা প্লেয়ার নেইমারের Nemar জীবনকথা নিয়ে আলোচনা করব। নেইমারের ফুটবল ক্যারিয়ার সম্পর্কে জানতে শেষ পর্যন্ত আমাদের সাথে থাকুন।

নেইমারের জন্ম Birth of Neymar.

Neymar  নেইমার ৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৯২ সালে ব্রাজিলের, মোগি দাস ক্রুজের নামক স্থানে জন্ম গ্রহন করেন।

নেইমারের পিতামাত। Neymar parent’s

নেইমারের Neymar পিতার নাম ছিল নেইমার সান্তোস সিনিয়র। আর তার (Neymar) মাতার নাম নাদিনে সান্তোস।  নেইমারের মতন তার বাবা ছিলেন একজন পেশাদার ফুটবল প্লেয়ার।

নেইমারের ফুটবলের শুরু জীবন।

আমরা যদি আমেরিকার খেলোয়াড়দের দিকে তাকই। বিশেষ করে ফুটবল খেলোয়াড়দের দিকে,  তাহলে দেখব তার পাড়ার ফুটবল থেকে বিশ্ব ফুটবলের খাতায় নাম লেখেছেন। নেইমারও তাদের ব্যাতিক্রম নন। তিনিও ফুটবল যাত্রা শুরু করেন পাড়ার খেলা থেকে।  ছোট বেলায় তিনি পাড়ায় অলি গলি ফুটবল দিয়ে মাতাতেন। চর্চা করতেন ফুটবল স্কিল, রপ্ত করতেন শৈল্পিক যাদুকর ফুটবল।  আর প্রশিক্ষকের ভূমিকায় থাকতেন তার বাবা।

নেইমার একজন মেধাবী ফুটবলার। তিনি তার জাত চিনিয়ে দিতে বেশ বিলম্ব করেন নি। তিনি মাত্র ১৭ বছর বয়সে পা দেন পেশাদার ফুটবলে। খুব নৈপুণ্য দেখাতে থাকেন তার যাদুময় পা দিয়ে। পেশাদার ফুটবলে পা দেবার ঠিক দুই বছর পরে তিনি পান একটি বড় সুসংবাদ।  ২০১১  – ২০১২ মৌসুমে তিনি আমেরিকার বর্ষসেরা ফুটবলার  নির্বাচিত হন। এ থেকে শুরু হয় তার জীবনের নতুন যাত্রা।  এ যাত্রা এখনো আব্যাহত।  তিনি কাতার বিশ্বকাপের জন্য বর্তমানে নিজেকে ঢেলে সাজিয়েছেন।

বার্সেলোনায় নেইমারের আগমন।

২৭ মে ২০১৩ সালে নেইমারের জীবনের নতুন অধ্যায় শুরু হয়। তিনি পদার্পণ করেন বার্সেলোনায়। নেইমারকে ৭৮ মিলিয়ন ডলার ট্রান্সফার এমাউন্ট এ বার্সেলোনা দলে ভিড়ায়। নেইমার পা রাখেন নূ ক্যাম্পে। নেইমারে ফুটবল জীবনের সবচাইতে গৌরবময় ও স্বাচ্ছন্দের দিনগুলির মধ্যে অন্যতম ছিল বার্সেলোনায় কাঠানো দিনগুলো। বার্সেলোনায় ছিলেন তার সতীর্থী নেওনেল মেসি। নেইমার ও মেসি মিলে অনেক সাফাল্য ও কাপ  জিতেন।

পরবর্তীতে সময়ে বার্সেলোনা আসেন উরুগুয়ের তারকা স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজ। বার্সেলোনায়  সুয়ারেজের আগমন মেসি নেইমারকে নতুন শক্তির যোগান দেয়। তারা হয়ে উঠেন শক্তিশালী আক্রমণকারী।তাদের জুটি ত্রয়ী ছিল অপ্রতিরোধ্য।

নেইমারের ২০১৪ ব্রাজিল ফিফা বিশ্বকাপ।

২০১৪ সালে ফিফা বিশ্বকাপে  ব্রাজিলের ইতিহাসে এক মর্মান্তিক ইতিহাস। ব্রাজিল সেমি ফাইনালে উঠে। ব্রাজিল সেমি ফাইনালে উঠার পইছনে সবচেয়ে বেশি অবদান ছিল নেইমারের। কিন্তু নেইমার সেমিফাইনাল ম্যাচ খেলতে পারেন। আর সেমিফাইনালে ব্রাজিল জার্মানির সাথো ৭-১ গোলে পরাজিত হয়ে নিজ দেশের মাঠির বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেয়। নেইমার সেমিফাইনালের পূর্বের ম্যাচে কলম্বিয়ার সাথে গুরুতর আহত হন। তিনি ব্রাজিল বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যান। তার পিঠের মেরুদণ্ডের হাড়ে চির ধরে। তার ফুটবল ক্যারিয়ার নিয়ে শংকা ছিল।শেষমেষ তিনি আবার ফুটবলে ফিরে আসেন বিশ্বকাপ পরে। নেইমার খুব দুর্দান্ত খেলা উপহার দিয়েছিলেন ২০১৪ বিশ্বকাপে। নেইমার ২০১৪ বিশ্বকাপে মোট গোল করেন ৪টি।

নেইমারের প্যারিসে আগমন। Neymar in PSG

নেইমার ২০১৭ সালে পর্যন্ত বার্সেলোনার অন্যতম সেরা তারকর ফুটবলার ছিলেন মেসি নেইমার ছুটি ছিল বার্সেলোনার জন্য সেরা এক অস্ত্র।  তারা ছিলে প্রায় অপ্রতিরুদ্ধ। কিন্তু ২০১৭ সালে নেইমার পাড়ি যমান প্যারিসে। সর্বকালের রিকর্ড ট্রান্সফার ফিতে তিনি চলে যান ফরাসি ক্লাব পিএসজিতে।

নেইমার ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপ।

রাশিয় বিশ্বকাপের পূর্বে নেইমার ছিলেন ভালো ফর্মে। আর ব্রাজিল দল ছিল অন্যতম হট ফ্যাবারিট টিম। বিশ্বকাপের অন্যতম দাবিার। রাশিয়া বিশ্বকাপে নেইমার ব্রাজিল দলের নেতৃত্ব নেন। রাশিয়া বিশ্বকাপে নেইমার সর্বমোট ২ টি গোল করেন। ব্রাজিল রাশিয়া বিশ্বকাপে কোয়ারটার ফাইনালনথেকে বিদায় নেয়। ব্রাজিল বেলজিয়ামের কাছে ২-১ গোলে পরাজিত হয়। সেবার ও বিশ্বকাপের জয়ের স্বপ্ন অধরা থেকে যায়।

ফিফা বিশ্বকাপে নেইমারের গোলসংখ্যা।

fifa Football worldcup এ নেইমারের গোল  Goal  সংখ্যা হলো ৬ টি। তিনি এ পর্যন্ত ২ টি বিশ্বকাপ খেলেছেন।

নেইমারের হ্যাটট্রিক।

নেইমার ব্রাজিলের হয়ে মোট ৫টি হ্যাটট্রিক করেছেন। সর্বশেষ সাউট কুরিয়ার সাথে হ্যাটট্রিক করেন।

নেইমারের ধর্ম।

নেইমার কোন ধর্মের? নেইমারের ধর্ম হলো খ্রিষ্টান ধর্ম। তিনি Pentecostal Christian ধর্মের একজন অনুসারী।

নেইমারের স্ত্রীর নাম neymar wife.

ব্রুনা রাইস মাইয়া হলেন নেইমারের স্ত্রী।  তিনি একজন অভিনেত্রী।

ক্লাবের হয়ে নেইমারের গোলসংখ্যা।

নেইমার ক্লাবের খেলার যাত্রা শুরু করেন সান্তোস দিয়ে। ২০০৯–২০১৩ সাল পর্যন্ত নেইমার সান্তুসে ছিলেন। তিনি ১৭৭ ম্যাচে ১০৭ গোল করেন।

নেইমার সান্তুস থেকে বার্সেলোনায় চলে আসেন। তিন ২০১৩–২০১৭ সাল পর্যন্ত খেলেন বার্সেলোনায়।
তিনি মোট ১২৩ ম্যাচে ৬৮ গোল করেন।

২০১৭ সলে নেইমার পিএসজি চলে যান।
পারি সাঁ-জেরমাঁ এর তিনি ৭০ ম্যাচে ৫৬ টি গোল করেন।

নেইমারের অর্জন ও বিজয়।

নেইমারের প্রতিনিধিত্বে ব্রাজিল ২০২১ সালে কোপা আমেরিকা রানার্সআপ হয়। ২০১৩ সালে কন্সফাডেরান্স কাপে চ্যাম্পিয়ান হয় ব্রাজিল। তাছাড়া নেইমারের নেতৃত্বে ব্রাজিল অলিম্পিকে স্বর্ণপদক অর্জন করে।

Neymar Jr official Website

Leave a Reply