কুমন শিক্ষাক্রম কি? আগামী বছর ৩০০ স্কুলে কুমন শিক্ষাক্রম চালু হবে

You are currently viewing কুমন শিক্ষাক্রম কি? আগামী বছর ৩০০ স্কুলে কুমন শিক্ষাক্রম চালু হবে
আগামী বছর ৩০০ স্কুলে কুমন শিক্ষাক্রম চালু হবে

শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড । শিক্ষা ছাড়া কোন জাতি উন্নতির শিখরে পৌঁছতে পারেনি।তাই এই শিক্ষাকে সহজ করতে আনন্দদায়ক করার জন্য জাপানি এই কুমন শিক্ষাক্রম চালু হবে । অর্থাৎ গনিত ও ইংরেজি কে আরো সহজ করতে কুমন পদ্ধতি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

  • শিক্ষা পদ্ধতিতে নতুন চমক আসছে শিক্ষা পদ্ধতি ‘কুমন’ । তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক জানিয়েছেন আগামী বছর থেকে আইসিটি বিভাগের ৩০০ টি স্কুল অব ফিউচারে কুমন শিক্ষাক্রম চালু করা হবে।এটা মূলত জাপানি শিক্ষা পদ্ধতি যা আমাদের বাংলাদেশে ও ছড়িয়ে দেয়ার কথা বলা হয়েছে। এছাড়া ২০২৫ খ্রিব্দের মধ্যে প্রতিটি শেখ রাসেল ল্যাবে ও চালু হবে আনন্দদায়ক এই শিক্ষা।
  • ০৮ ইং অক্টোবর শনিবার সাভারের বিরুলিয়ায় ব্রাক সিডিএম জাপানি এই শিক্ষা পদ্ধতি ‘ব্রাক কুমন ‘প্রতিযোগীতায় স্বর্ণ – রৌপ্য পদক বিজয়ী ও অন্যদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী।

কুমন শিক্ষাক্রম কি?

আনন্দদায়ক শিক্ষা ও গানে গানে শিশুদের জন্য সবুজ বাগান এবং মনোমুগ্ধকর পরিবেশ গড়ে তোলার প্রত্যয় জানিয়ে বিরুলিয়ার বিসিডিএম সেন্টারে কুমন জয়ীদের অনুপ্রাণিত করেন প্রতিমন্ত্রী। সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালি বিশেষ অতিথি এবং আরো ছিলেন জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি। এছাড়া আরও ছিলেন ব্রাকের প্রধান নির্বাহী ( সিইও) আসিফ সালেহ ব্যবস্থাপক পরিচালক ( এমডি) সার ওয়াত আবেদন।

তাহলে জেনে নেওয়া যাক কুমন পদ্ধতি আসলে কি


কুমন পদ্ধতির প্রবক্তা হলেন জাপানি নাগরিক তরু কুমন।তার নামানুসারে এই পদ্ধতির নামকরণ করা হয়।তার ছেলে তাকেশী গনিতে দুর্বল থাকায় তার দক্ষতা বাড়াতে এ গনিত শিক্ষক ১৯৫৮ খ্রি.অভিনব এ পদ্ধতির আবিষ্কার করেন। শিক্ষার্থীরা অতি সহজেই গনিত ও ইংরেজি শিক্ষা উপলব্ধি করতে পারবে। বিভিন্ন ধাপ ও লেবেলে শিক্ষার্থীরা কিন্তু এগিয়ে যাবে।তিনি আরো জানান বর্তমানে দেশের ৬০ টি দেশের ৪০ লাখ শিশু কিন্তু এই কুমন পদ্ধতির সাহায্যে গনিত ও ইংরেজির দক্ষতা অর্জন করতে পেরেছে।

  • কেএম খালিদ বলেন , বাংলাদেশের শিশুদের সহজে গনিত ও ইংরেজি শেখাতে কুমন পদ্ধতির বিস্তার ঘাটাচ্ছে ব্রাক সে জন্য তাদের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা স্বীকার করেছেন কেননা শিক্ষার বিস্তারে যেকোন‌ শিক্ষনীয় পদক্ষেপ প্রশংসনীয়।
  • ব্রাকের বিভিন্ন উদ্যোগ ও কর্মকান্ডের প্রশংসা করেন প্রতিমন্ত্রী। বাংলাদেশের নিযুক্ত জাপানি রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি বলেন,আমি আশা করি জাপানি এই কুমন পদ্ধতির শিক্ষা জাতীয় পাঠ্যক্রমে গ্ৰহন করা হবে এবং ভবিষ্যতে এটা দক্ষ জনশক্তি গঠনে একটি মডেল হয়ে থাকবে।

জাপানি শিক্ষা মেথড ডিজিটাল কুমন।
‘সত্য সুন্দর ‘ রবীন্দ্র সংগীত গেয়ে জাপানি রাষ্ট্রদূত শিশুদের উৎসাহিত করেন। সম্প্রতি চট্রগ্রামের হালুয়াঘাটে শুরু হয়েছে এ জাপানি শিক্ষা মেথড ডিজিটাল কুমন‌ শিশুদের ফ্যাবলেট আর সাইলেন্স পেনের মাধ্যমে ।

দেশের চারটি ব্রাক কুমন স্কুলের ৮৪ জনকে স্বর্ণপদক সহ ৩৩০ জনকে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে এ পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে করা হয়।

শিক্ষার বিস্তারে ব্যাপক প্রস্তুতি ও পরিবর্তন ইতিবাচক ভূমিকা পালন করতে সাহায্য করবে ইনশাল্লাহ আমার এই পোস্ট টি ভালো লাগলে বেশি বেশি শেয়ার করবেন।

Leave a Reply